Self Evaluation of Nari Jibon Blog

Nari Jibon established and has been maintaining two blogs ( English and Bengali) since 2007 in order to increase creativity and the writing skills of the staff and students. After a few months of having started our blogging activities, we got a Rising Voices mini-grant that has been helping a lot to improve its activities. We could let the community people know through our students and their guardians about the importance of blogging. Since we started our blogging activities more than three hundred students/guardians got to know about blogging though they all did not do blogging actively but we got some of them who blogged and as yet blogging. Our trainer Taslima Akter invited to attend a blogging workshop arranged by Relief International Bangladesh as a blog trainer. She trained more than 25 people on blogging following Citizen Media guide.

We arranged several blogging workshops for the staff and students. We also have been maintaining a weekly training program on photo/video blogging etc. In our workshop we got Mr. Razib Ahmed a renowned professional blogger,  Mr. Shawn Ahmed from Uncultured project, Ms. Kira Kariakar a Venezuelan photo blogger and journalist. We learned many things from them about blogging, photo, video blogging, and about Flickr etc. We also got Citizen Media guide from rising voices that helped us a lot to improve our blogging activities. We are following Citizen Media guide. Our trainer is following the guide to train up our students/bloggers regularly. In these ways our current students are learning about blogging, increasing their creativity and writing skills And also our upcoming students will be learning about blogging as blogging is integrated to the entire course curriculum. Now six of our staffs and 12 students have separate blogs.

Student blogs:

1. Afrin’s Gallery http://asiaafrin.blogspot.com/
2. Jesmin’s garden http://jesmingarden.blogspot.com/
3. Zannat’s world http://zannatworld.blogspot.com/
4. Rainbow http://jannat-fardoush.blogspot.com/
5. Bangladeshi Women http://jainub-khanam.blogspot.com/
6. Ahona http://ahona-hira.blogspot.com/
7. Window of Mind, http://sufia-eti.blogspot.com/
8. My Dream, http://poly-dream.blogspot.com/
9. Choti’s blog http://choitrerdinguli.blogspot.com/
10. Every child is special by Afiya Akter http://afia-akter.blogspot.com
11. My World by Rumi Akter  http://rumi-akter.blogspot.com
12. Cloudy sky by Rifat Akter http://rifat-akter.blogspot.com

Staff blog addresses:

1. Bipa’s Prokrito Bangladesh http://www.bipa-prokritobangladesh.blogspot.com/
2. Sujan’s Chinta, http://hi-bangladesh.blogspot.com/
3. Creative talk by Nilufa http://annekuet.blogspot.com/
4. Rafiq’s eye, http://kazi-rafiq.blogspot.com/
5. Techna Tara: http://taslima-toma.blogspot.com/
6. kajol’s Destiny by Afroza Akter Kajol http://kajols-destiny.blogspot.com

Most of them are writing in their blogs regularly. We hope the number will increase and we will get more active bloggers in near future who will open their separate blogs.  We also hope that through blogging they will be able to improve themselves and to convey their thoughts to improve and or solve the problems of the society/ nation. 

We also are planning to visit some NGOs to tell their staff about the importance of blogging. We will encourage them to do blog . We also will invite them to come to Nari Jibon to learn more about blogging and if they want we will arrange a special training program for them.

We can not say that we have succeeded but we must say that we are on the right track and in future we will reach to our goals.

December,8, 2007, update

Nari Jibon Blog dol (group) arranged a meeting on (08.12.07). Rafiq, Taslima Akter, Golam Rabbany Sujan, Mohtarimun Naher Bipa, Shamima, were present in the meeting. Nari Jibon blog activities, progress, problem and what to do were discussed in the meeting.
Since the beginning we have posted 136 articles (both Bangla and English). 14 articles were posted from 25.12.07 to 08.12.07 (English-9 and Bangla-5).

English posts:
1. When Nari Jibon act as alternative skill provider by golam rabbany Sujan
2. Various uses of flowers by Salma Siddiqa Mumu
3. Monowara Begum who faced domestic violence after marriage by Taslima akter
4. A street hawker in Bangladesh by Tahmina Akter
5. An anecdote of my friend Mitu by Sherin Sultana
6. Justice for Nadine delayed-fugitive Sajid absconds again by prof. Kathrun B. Ward
7. Bloggers profile (students-Papiya Hossain Shampa, Nelufa Akter)
8. Once in a moon-lit night by Sherin Sultana
9. Cyclone Sidr and my experience by Taslima Akter

Bangla posts:

1. Amra Nari (We are woman) by Sharmin Chowdhury Shikha
2. Amar Na bola Khotha ( My untold story) by Helen Sarker
3. Shei meye (That girl –part-3) by Zannat Ara Amzad
4. Prolayankary Cyclone Sidr (Cyclone Sidr) by Irin Sultana
5. Ghurnijhar Sidr ebong antornihito bhayanot abhiggata (Cyclone Sidr and experience of a terrible night) by Laily Jahan Meghla

We have 23 articles/writings in hand (Bangla-16 and English-7). Those will be posted after editing.

English:
1. How long the women will suffer?
2. If I were a prime minister by Ruma Akter
3. Bloggers profile (students). Profile of Hasina Akter, Shurma Akter, Papia, Any, Afroza Akter, and Nilufa Akter
4. Comrade (poem) by Jesmin Ara Amzad
5. I miss you by Sherin Sultana
6. Historical place Sonargaion by Taslima Akter
7. A successful Business woman by Taslima Akter

Bangla:
1. Bloggers profile (students) Profile of Sifat Binte Quaiyum, Ayesha Parveen, Bushrat Binte Quaiyum, Laily Jahan Meghla, Hasina Akter, Shurma Akter, Papia, Any, Afroza Akter, and Nilufa Akter
2. Andhokarer chele (Boys in the dark) By Helen Sarkar
3. Shabbota ( Civilization) by Helen Sarkar
4. Saraok Konna ( road Girl) by Shurma Akter
5. Chele meyer adhikar (rights of male and female) by Shurma Akter
6. Ekti meyer nirob kanna by Taufiqa Farjana
7. Protivar bilupti ( Abolished talent) by Sufia Khatun
8. Chele belay sona Rup khotha (Fairy tales that I heard in my childhood) by Nilufa Akter
9. Kono ek din ( once a day) by Jannat Ara Amzad
10. Coaching centre by Nurun Naher Nipa (English-1 student)
11. Bondhu (Friend). A poem by Jesmin Ara Amzad
12. Bonna o Amar jacket ( Flood and my Jacket) by Helen Sarkar
13. Gramer Nari (Village women) by Sheikh Rumana
14. Mayer Dadur Biye (Marriage of mother’s grand father by Bafisa Mubassira
15. Interview: Ekjon sarthok bebosayee nari (A successful Business woman) by Taslima Akter
16. Shaisaber bhalobasha (love at the childhood) by by Laily Jahan Meghla

Training:
Nari Jibon blog dol (group) arranged a training program for the new/old bloggers. Taslima Akter conducted the training program. Ms. Taslima briefed the new, old bloggers about blogging. She trained the students. She trained the new bloggers what is blog, how to write a post, what to write and also Bangla typing etc. Following students were present in the blog training:

1. Tahmina Akter Rani-662
2. Rumi Akter-669
3. Ruma Akter-661
4. AnuKona Barui -739
5. Laily Jahan Meghla-737
6. Sharmin Ch. Shikha-736
7. Bushrat-binte-quaiyum-741
8. Iyrin-744

Next Training:
Next training will be on video Camera/ digital camera for some staffs and also for some students (work-study students).
Ttrainer: Taslima Akter. She will train the staff/ students on video blgging
(She will train the staff/students about the use of video and digital camera, posting etc.).

Proposed post for next weeks:
English posts:

1. How long the women will suffer
2. If I were a prime minister by Ruma Akter
3. Bloggers profile (students). Profile of Sifat Binte Quaiyum, Ayesha Parveen, Bushrat Binte Quaiyum, Laily Jahan Meghla, Hasina Akter, Shurma Akter, Papia, Any, Afroza Akter, and Nilufa Akter
4. Comrade (poem) by Jesmin Ara Amzad
5. I miss you by Sherin Sultana
6. Historical place ‘Sonargaion’ by Taslima Akter

Bangla posts:
1. Bloggers profie(students). Profile of Hasian Akter, Shurma Akter, Afrin Afroz Any, Afroza Akter, and Nilufa Akter
2. Ekti meyer Nirob kanna by taufiqa Farjana
3. Interview: Ekjon sarthok bebosayee nari (A successful Business woman) by Taslima Akter
4. Monowara Begum, Ekjon nirjatita mohilar kotha (Monowara Begum who faced domestic violence after marriage) by Taslima Akter
5. Kono ek din (Once a day) by Jannat Ara Amzad
6. Bondhu (Friend). A poem by Jesmin Ara Amzad
7. Amar na bola Khatha (My untold story) by Helen Sarker
8. Andhokarer chele (Boys in the dark) By Helen Sarkar
9. Shabbota (Civilization) by Helen sarkar
10. Bonna o Amar jacket (Flood and my Jacket) by Helen Sarkar
11. Amar na bola Khatha (My untold story) by Helen Sarker

Nari Jibon blog dol will be very glad to have your suggestion, comments

একজন সংগ্রামী নারীর জীবন কথা – ১

বিউটি (ছদ্মনাম) ২১ বছর বয়সী এক তরুনী, সুন্দরী এবং উজ্জল তার হাসি যে কারই নজর কাড়ে। তার জন্ম মধ্যবিত্ত একটি পরিবারে এবং সপ্তম শ্রেনী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছে। দামী পোশাক পড়ে, কখনো দামী গাড়িতে চড়েও সে সুখী নয়। তার কোন আত্মীয় তাকে পছন্দ করে না এমনকি তার সাথে কোনরকম যোগাযোগ রাখে না। সে আমাদের সমাজে একজন অপরাধীর মত বসবাস করে। যদিও সে কিছুদিনের জন্য দেশের বাইরে চলে গিয়েছিল এবং বর্তমানে সে একজন যৌনকর্মী(বাসা–বাড়ি ভিত্তিক)।

১৯৮৬ সালে ঢাকার রায়ের বাজারে একটি মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করে বিউটি। পাঁচ বোন ও দুই ভাই এর মধ্যে বিউটি ছিল তার বাবা-মায়ের চতুর্থ সন্তান। তার বাবা একজন ছোট মুদির দোকানদার ছিলেন আর তার মা ছিলেন একজন গৃহিনী। তার বাবা ফরিদপুর জেলার এবং তার মা ছিলেন ঢাকার স্থায়ী বাসিন্দা।  তার মায়ের অনেক আত্মীয় ঢাকায় বাস করত। বিউটি এবং তার পরিবারের কোন সদস্যেরই গ্রামের বাড়িতে যাতায়াত ছিল না। কিন্তু তার দাদা-দাদী গ্রামের বাড়িতে বসবাস করতেন বলেই তার বাবা মাঝে মাঝে যেখানে যেতেন।      

তার ছোটবেলায় সে এবং  তার প্রতিবেশীর মেয়ে ভর্তি হয় বাড়ির কাছের একটা স্কুলে। দুজনে একসাথে স্কুলে যেত। বিউটি তখন প্রথম শ্রেনীর ছাত্রী, স্কুল শেষে একদিন সে এবং তার বান্ধবী বাসষ্ট্যান্ডে গিয়ে বাসে উঠে পড়ে কিন্তু দুজনের কেউই জানেনা কোথায় যাচ্ছে। বাসের হেলপার তাদেরকে বাস থেকে নামিয়ে দেয়। তারপর তারা বাড়ির দিকে হাঁটতে লাগল কিন্তু তারা পথ হারিয়ে ফেলল। অনেক পথ হাঁটতে হাঁটতে তারা দুর্বল হয়ে পড়লে কাঁদতে শুরু করে। অনেক লোক তাদেরকে জিজ্ঞেস করল তারা কোথা থেকে এসেছে এবং ঠিকানা কি ? কিন্তু দুজনে কেউই তাদের ঠিকানা বলতে পারেনি। অবশেষে পুলিশ তাদেরকে থানায় নিয়ে যায় এবং পরের দিন মিরপুর ভবঘুরে কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়। পুলিশ তাদের ঠিকানা জিজ্ঞাসা করলে তারা শুধুমাত্র পরিবারে সদস্যদের নামই বলে কিন্তু বাড়ির ঠিকানা বলতে পারেনি। তার কিছুদিন পরে তাদেরকে গাজীপুর ভবঘুরে কেন্দ্রে পাঠিয়ে দিল।

মুলতঃ এটা ছিল ১৯৯৫ সালের কথা। পাঁচবছর এর মত বিউটি ভবঘুরে কেন্দ্রে ছিল। সে ভবঘুরে কেন্দ্রে এন.জি.ও স্কুলে ক্লাস-৬ পর্যন্ত পড়েছে। তার স্কুল শিক্ষকের তার ভাল সম্পর্ক হয় এবং তারপর তাকে প্রথম সে যে স্কুলে পড়াশুনা করেছিল সেই স্কুলের নাম বলল। তারপর তার স্কুলের শিক্ষক তার ঐস্কুলে যোগাযোগ করে এবং তার বাবা-মার সাথে যোগাযোগ করে। খবর পেয়ে তার বাবা-মা তাকে ভবঘুরে স্কুল থেকে নিয়ে আসে। প্রথম দিকে বিউটির বাবা-মা বিভিন্ন জায়গায় খুঁজাখুঁজি করেছিল কিন্তু তারা কোথাও বিউটির কোন সন্ধান পায়নি এবং পরে বিউটির বাবা-মা এবং আত্মীয় স্বজন ধারনা করেছিল যে সে মারা গেছে। তার মা এবং পরিবারের অন্যরা অনেক দিন পর তাকে দেখে খুব খুশি হয়।

 পরিবারের সাথে বিউটির দিনগুলো আনন্দেই কাটছিল। সে পূনরায় ক্লাস-৬ ভর্তি হয় এবং তার শখ ছিল নৃত্য, তাই পড়াশুনার পাশাপাশি বাসার কাছের একটি নাচের স্কুলেও ভর্তি  হয়। একবছর পর যখন সে ক্লাস-৭ এ পড়ত  তখন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সে নাচত এবং ১০০০ টাকা করে পেত। ধীরে ধীরে লোকজনের কাছে সে একজন নৃত্যশিল্পী হিসাবে পরিচিতি পেতে থাকে। আনন্দেই কাটছিল তার দিনগুলো।

তার জীবনের পরের কথা আসছে খুব শিগ্রই……………….

১. তার জীবনের একটা দুঃঘটনা এবং কিভাবে সে একজন যৌনকর্মী হল?

২. কিভাবে সে দুবাই গিয়েছিল ? কিভাবে কেটেছিল তার একটি বছর?

৩. তার বর্তমান জীবন এবং তার যৌন পেশা?

অনুবাদ: তাসলিমা আক্তার

“যৌতুক” বাংলাদেশের নারীদের একটি বড় সমস্যা

আমাদের এ বাংলাদেশে একটি গনতান্ত্রিক দেশ। প্রায় ১৪ কোটি মানুষের বাস ছোট এ ভূমন্ডলে।ছোট এদেশে বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হচ্ছে নারীরা। তারপর ও বিভিন্ন প্রতিকুলতা ভেঙ্গে তারা সামনে এগিয়ে যাচ্ছে।বাংলাদেশের নারীদের একটি অন্যতম সমস্যা হল যৌতুক প্রথা । যৌতুক দেয়া ও নেয়া আইনত দন্ডনীয় অপরাধ। বাংলাদেশ সরকার যৌতক প্রথা প্রতিরোধে আইন প্রনয়ন করেছেন। তারপর ও নারীরা যৌতুকের জন্য শারিরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতিত হচ্ছেন। তার একটি প্রতিবেধন তুলে ধরা হল আমার দেশ সংবাদপত্র থেকে:

“আমার তো টেহা-পয়সা কিছুই নাই কা, দুনিয়াটা টেহার গোলাম, অহন আমার কি অইব, কই যামু-কি খামু, বেটায় খালি মাইর-ধইর করে, ঘরত থাহন যায় না; দুই মাইস ধইরা চাকরিতে যাই না; একটা মীমাংসা দরকার, আমার টেহাগুলান ফেরত চাই, হের লগে আমার আগের হেই জীবনডাও! গাজীপুর জেলার কোনাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে হালিমা বেগম অশ্রুসিক্ত ভাবেই বলছিলেন তারর কথাগুলো।

দ্বিতীয় পর্ব:

কোনাবাড়ির আমবাগ গ্রামের স্থনীয় বাসিন্দা হালিমা বেগম (বয়স ২৫)স্বামী তাজুল ইসলাম, বরিশাল থেকে কর্মস্থানের খোঁজে আমবাগে আসেন। এখানে তিনি মিশুক চালানোর কাজ শুরু করেন। একই এলাকায় চেনা-জানার সূত্র ধরে তাজুলের সঙ্গে হালিমার বিয়ে হয়। প্রায় দেড় বছর সংসার জীবনের একপর্যাযে হালিমা জানতে পারে সে তাজুলের দ্বিতীয় স্বামী প্রায়ই হলিমার কাছে টাকা চেয়ে ব্যর্থ হলে তাকে শারীরিক আঘাত করত। এভাবে নির্যাতনেরমাত্রাও বাড়তে থাকে। হালিমার অজান্তে তার বড় বোনের কাছ থেকে ব্যবসার কথা বলে তাজুল বেশ কিছু টাকা সংগ্রহ করে।নিজস্ব একটি গাড়ি থাকলে সুবিধা অনেক, এই বলে হালিমার কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা সংগ্রহ করেন (হালিমার বিয়ের আগে সঞ্চিত অর্থ)।

এরপর থেকে আরো অর্থ প্রাপ্তির প্রত্যাশায় তার স্বামী হালিমার কাছে আবদার করতে থাকে। এক সময় তা শারীরিক নির্যাতনের পর্যায়ে যায় এবং বিবাহ বিচ্ছেদের ভয় দেখায়। ধীরে ধীরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে তাজুলের অত্যাচার আরো বেড়ে যায়। হালিমা বিষয়টি এলাকার চেয়ারম্যানকে অবগত করলে তিনি তা তদন্ত করেন। তাজুলকে নোটিশ প্রদান করা হলে তিনি হালিমাকে হুমকি দেন। ইউনিয়ন পরিষদে বিচারের দিন তাজুল অনুস্থিত থাকেন। ফলে বিচারকার্যের কোনো সুফল মেলেনি। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চেয়ারম্যান লোক পাঠালেও তাজুলকে খুঁজে আনা সম্ভব হয়নি। বিচার চলাকালীন হালিমাকে বেশ কয়েকজন বিচার স্হগিত করতে বলে। যদি এই বিচার প্রক্রিয়াধীন থাকে তাহলে তার বিপদের আশঙ্কা থাকবে। পরবর্তী তারিখ ঘোষণার মধ্য দিয়ে সে দিনের মতো বিচার স্হগিত রাখা হয়।

বাপের বাড়ির সম্পত্তি

একই দিন কোনাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদে চলছিল আরো একটি বিচারকার্য জোরুন মধ্যপাড়া কোনাবাড়ি থেকে আগত দুই বোন আমেনা (বয়স ৪৮) ও আসিয়া (বয়স ৪০) উপস্থিত ছিলেন। মুসলিম আইন অনুযায়ী দুই বোনই পিতার প্রাপ্য সম্পত্তির অংশের মূল্য (নগদ অর্থ) তারা উভয়েই স্বামীর অজান্তে টিপসই দিয়ে গ্রহণ করে। নগদ টাকা হাতে আছে স্বামী জানতে পারলে সংসারে অশান্তি হবে। তাছাড়া তারা তাদের ছেলেমেয়ের কথা ভেবেই টাকার কথা গোপন রাখে। এক সময় লোক মারফত উভয় বোনের স্বামীই টাকার কথা জানতে পারে। টাকার কথা অস্বীকারের সূত্র ধরেই পরিবারে চলছিল নানা অশান্তি। বেশ কয়েকদিন বিচার চলার পর দুই বোনই টাকা নেয়া এবং টিপসইয়ের কথা স্বীকার করেন। ফলে বিচারকার্য সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়। তবে টাকা গচ্ছিত থাকবে মেয়ের বিয়ের জন্য এই রায় ঘোষণা করা হয়।”

উপরোক্ত এমন ঘটনার মত বাংলাদেশের অনেক নারীরাই নির্যাতিত হচ্ছে এবং স্বীকার হতে হচ্ছে বিভিন্ন অপ্রতিকুল অবস্থার। তারপর ও বিভিন্ন প্রতিকুলতা ভেঙ্গে তারা সামনে এগিয়ে যাচ্ছে।

 

লিখেছেন তাসলিমা আক্তার